জিডিপি প্রবৃদ্ধিতে ৩% অবদান রাখবে প্রতিযোগিতা কমিশন

প্রতিযোগিতা কমিশন সঠিকভাবে কাজ করতে পারলে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতই দেশের জিডিপির প্রবৃদ্ধিতে দুই থেকে তিন শতাংশ অবদান রাখবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা কমিশনের চেয়ারপার্সন মো. আব্দুর রউফ।

তিনি বলেন, ‘বিভিন্ন নামে বিশ্বের প্রায় দেড়শ’ দেশে প্রতিযোগিতা কমিশন রয়েছে। এসব কমিশন নিজ নিজ দেশের জিডিপিতে দুই থেকে তিন শতাংশ অবদান রাখছে। ২০১২ সালে ঘোষণার পর আমাদের দেশের প্রতিযোগিতা কমিশনের কাজ শুরু হয়েছে ২০১৬ সালে। আমরাও প্রতিযোগিতা কমিশনের কাজ সঠিকভাবে পালন করতে পারলে জিডিপি প্রবৃদ্ধিতে তিন শতাংশ অবদান রাখতে পারবে।’

রোববার (১৫ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর পল্টনে ইকোনমিক রিপোর্টার্স ফোরামে (ইআরএফ) ‘প্রতিযোগিতায় প্রবৃদ্ধি: বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা কমিশনের ভূমিকা’ শীর্ষক সেমিনারে তিনি এসব কথা বলেন।

ইআরএফের সাধারণ সম্পাদক এস এম রাশিদুল ইসলামের সঞ্চালনায় এ সময় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব শফিকুল ইসলাম, এফবিসিসিআইয়ের ট্রেড পলিসি পরামর্শক ও সাবেক পরিচালক মো. মঞ্জুর আহমেদ, কমনওয়েলথ সচিবালয়ের সাবেক আন্তর্জাতিক বাণিজ্য বিভাগের প্রধান ও অর্থনীতিবিদ ড. আব্দুর রাজ্জাক, বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা কমিশনের পরিচালক আমীর আব্দুল্লাহ মু. মঞ্জরুল করীম, খালেদ আবু নাছেরসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা কমিশনের চেয়ারপার্সন মো. আব্দুর রউফ বলেন, ‘প্রতিযোগিতা কমিশন ঠিকভাবে কাজ করলে পণ্যের মান ও উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে। ভোক্তারাও ন্যায্য মূল্যে পণ্য পাবেন। বর্তমানে ১৩০টি দেশে এ আইন চলছে। তার মধ্যে এশিয়ার ১৭টি দেশে এটি কার্যকর রয়েছে।’

‘অনেক সীমাবদ্ধতা থাকা সত্ত্বেও কমিশন দু’টি অভিযোগের নিষ্পত্তি করেছে। আর দু’টি অভিযোগের তদন্ত চলছে। আশা করছি, একটি প্রতিযোগিতামূলক বাজার সৃষ্টির লক্ষ্যে বাজার সংশ্লিষ্ট সবাইকে সম্পৃক্ত করা, সচেতন করা ও আইনের যথাযথ প্রয়োগের মাধ্যমে একটি সুষ্ঠু ব্যবসায়িক পরিবেশ গড়ে তোলা সম্ভব হবে,’ যোগ করেন তিনি।